প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ নভেল করোনাভাইরাস মানুষের চোখের মধ্যে কয়েক সপ্তাহ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন ইতালির গবেষকরা। ইতালির ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ইনফেকশনাল ডিজিজেসের বিজ্ঞানীরা সংক্রমিতদের বিশ্লেষণ করতে গিয়ে তাদের চোখে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

 

 

 

 

 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইনডিপেনডেন্ট জানিয়েছে, ৬৫ বছর বয়সী এক নারী চীনের উহান থেকে ইতালিতে ফিরে সুস্থই ছিলেন। তার মধ্যে কোনো উপসর্গ ছিল না। কিন্তু কয়েক সপ্তাহ পর যখন তার চোখে প্রদাহ শুরু হলো তখন রক্তাভ চোখে জ্বলুনি নিয়ে তিনি হাসপাতালে আসেন।

 

 

 

 

চিকিৎসক তখন তার চোখের পানি পরীক্ষা করেন। ,বিজ্ঞানীরা তখন ওই নমুনায় করোনাভাইরাসের উপস্থিত পান। তারা এটি দেখে অবাক হন যে ওই নারীর চোখে অন্তত ২১ দিন ধরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ছিল।

 

 

 

ইতালির গবেষকরা বলছেন, তারা বুঝতে পেরেছেন যে ওই নারীর চোখের পানি রোগ ছড়ানোর সম্ভাব্য একটি উৎস ছিল। তারা বলছেন, এ থেকে বোঝা গেল, মানবদেহের অন্যান্য অঙ্গের সঙ্গে চোখও করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রবেশ দ্বার হতে পারে।

 

 

 

 

 

এ জন্য সংক্রমণ এড়াতে হাত দিয়ে চোখ, মুখ, নাক স্পর্শ না করার যে কথাটি আগে থেকে বলা হচ্ছে, তা আরও জোর দিয়ে বলছেন ইতালির গবেষকরা। বিজ্ঞানীরা শুরু থেকেই জানিয়েছেন, করোনা একটি অণুজীব, যা খালি চোখে দেখা যায় না।

 

 

 

 

এটি যে কোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে পারে। এ পর্যন্ত সে ৩৮০ বার নিজেকে পরিবর্তন করে মারাত্মক রূপ ধারণ করেছে করোনাভাইরাস।