প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ    নিউইয়র্ক শহরে করোনাভাইরাসে শুরুর দিকে আক্রান্তদের একজন বলেছেন, তিনি যখন হাসপাতালে গেছেন, চিকিৎসকরা একবারের জন্যও করোনা পরীক্ষার কথা বলেননি।

 

 

ম্যানহাটনের আইনজীবী লরেন্স গারবাজ বলেন, ২ মার্চ নিউ রোসেলেতে তিনি করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন। তিনি এনবিসি নিউজকে বলেছেন, হালকা লক্ষণ নিয়ে ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পর কী ধরনের ঘটনা ঘটেছে।

 

 

তিনি বলেন, আমি ভেবেছিলাম এটা শুধু কাশি। বিশেষ করে শীতকালীন সমস্যা। সাদামাটাভাবে বললে, হাসপাতালের স্টাফরাও আমার লক্ষণগুলোকে করোনাভাইরাসের সঙ্গে একবারের জন্যও মেলানোর চেষ্টা করেনি।

 

 

লরেন্স গারবাজ যেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন, সেখানে করোনাভাইরাসের ব্যাপারে কোনো সচেতনতাই ছিল না। তিনি মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম করোনা রোগী ওয়েস্টচেস্টারের নিউ রোসালে-তে ছিলেন। আর তার মাধ্যমে অন্যরা আক্রান্ত হয়েছে।নিউইয়র্কে করোনা পজিটিভ হওয়া দ্বিতীয় ব্যক্তি লরেন্স গারবাজ। করোনা পজিটিভ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য তিনি ২ মার্চ তিনি ভর্তি হন।

 

 

জানা গেছে, গারবাজের সঙ্গে করোনা আক্রান্ত অন্তত ৫০ জনের যোগসূত্র রয়েছে। পরে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন তার স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে, প্রতিবেশি, তাকে হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়া গাড়ির চালক, বন্ধু ও তাদের পরিবারের সদস্যরা।

 

 

করোনা পজিটিভ হওয়ার আগে নিউ রোসালের ইয়ং ইসরায়েলে ধর্মীয় এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন গারবাজ। ১০ মার্চ ওই এলাকা লকডাউন করে দেওয়া হয়। তবে শেষ পর্যন্ত আরো শূন্য রোগী চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নি।