প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ  আজ দেশে সাংবাদিক, পুলিশ সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে। এভাবে দেশে লাশের সারি বৃদ্ধি পাচ্ছে। অথচ সরকার করোনা রোগীদের বাঁচাতে উন্নত হাসপাতালের ব্যবস্থা করেনি বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

 

 

রিজভী আরো বলেন, ক্ষুধার্ত মানুষ দিন আনে দিন খায়। সরকার চায় না, গরিব মানুষ বেঁচে থাকুক। সরকার একবার বলে লকডাউন শিথিল, আরেকবার বলছে লকডাউন চলবে—এভাবে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। সরকার চাইছে ছেড়ে দিলাম, যে বাঁচবে বাঁচবে, যে মরবে মরবে।

 

 

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার নিমতলা সুখের ঠিকানা এলাকায় কেন্দ্রীয় বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপুর উদ্যোগে ৩০০ জনের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে এ বলেন তিনি।

 

 

রুহুল কবির রিজভী বলেন, লকডাউন-শাটডাউন মেনে চলতে হবে, সাবধানতা অবলম্বন করেই কাজ করতে হবে—এটা হচ্ছে করোনার মূল প্রতিষেধক। অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, সরকার এ ব্যাপারে কোনো কিছুই করেনি।

 

 

তারা ত্রাণ বিতরণে নিজেদের লোক নিয়োগ দিয়েছে। আর নেতাকর্মীরা লুটে খাচ্ছে ত্রাণ। তাদের বাড়িতে ত্রাণের চাল থেকে তেল সবকিছু পাওয়া যাচ্ছে।

 

 

বিএনপি জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব আরো বলেন, ‘জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হলেও ক্ষুধার্ত গরিব ও অসহায় মানুষের পক্ষে থাকব। তারপরও সরকার নিপীড়ন-নির্যাতন করছে। ভয়ংকর মহামারির মধ্যেও ধরপাকড় অব্যাহত রেখেছে।’