প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃরাজনৈতিক কারণে দুই দেশের মাঝে শত্রুতা লেগেই আছে। দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এখন বন্ধ। ১৭ বছর আগে ২০০৩ সালে পাকিস্তানে এক সফরে গিয়েছিল ভারত। সেই দলের হয়ে নজর কেড়েছিলেন পেসার ইরফান পাঠান। তার রামধনুর মতো বাঁকানো সুইং মোকাবেলা করতে বেগ পেতে হয়েছিল পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের। সেই পাঠান নাকি ওই সফরে যেতেই চাননি! কারণ রঞ্জি ট্রফিতে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে বদোদরার ম্যাচ ছিল।

 

 

সুরেশ রায়নার সঙ্গে এক লাইভ চ্যাটিংয়ে সাবেক এই পেসার বলেন, ‘২০০৩ সালের পাকিস্তান সফরে আমি যেতে চাইনি। সামনেই ছিল বদোদরা ও মুম্বাইয়ের মধ্যকার রঞ্জি ট্রফির ম্যাচ। আর ওই সময়ে আমি বেশ ভালো খেলছিলাম। রত্নাকর শেঠী স্যারকে বলেছিলাম, আমি যাব না। রঞ্জি ট্রফিতে ভালো পারফর্ম করতে পারলে এমনিই জাতীয় দলে ডাক পাব। যা শুনে শেঠী স্যার বলেছিলেন, তোমাকে যেতেই হবে। কারণ ১৪ বছর পরে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে ভারত। তুমি পাকিস্তানে গিয়ে অনূর্ধ্ব ১৯ পর্যায়ে খেলেছ। তোমাকে যেতেই হবে।’

 

 

গুরুর কথাই শেষ পর্যন্ত মেনে নিতে বাধ্য হন ইরফান। জাতীয় দলের সঙ্গে উড়াল দেন চিরশত্রু দেশের উদ্দেশ্যে। মাঠে নেমে অবশ্য তিনি চমকে দিয়েছিলেন। পাঠান বলেন, ‘কার ভাগ্যে যে কী লেখা থাকে, তা আগাম কেউ বলতে পারে না।’ ইরফানের কথা শুনে রায়না বলেন, ‘লাহোর ম্যাচের কথা আমার মনে আছে। তুমি ৯ উইকেট নিয়েছিলে। দুটি হ্যাটট্রিক ছিল। তোমার কথা সবাই বলছিল। পাকিস্তানে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য তুমি অস্ট্রেলিয়া সফরে ডাক পেয়েছিলে।’