প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ  জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, দেশের প্রতিটি দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সফল হয়েছে। দুর্যোগের মধ্যেও অসহায় ও দরিদ্র মানুষেরা শান্তিতে ছিল। করোনার এই দুর্যোগেও তাদের কষ্ট যেন না হয় সে জন্য চিকিৎসা সেবা, খাদ্যসামগ্রীসহ নগদ অর্থ প্রদান অব্যাহত রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

এছাড়া আম্ফান মোকাবেলাও সরকার সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন।তিনি বলেন, বিশ্ব যখন করোনাভাইরাস মোকাবেলা করতে বিভিন্ন ধরনের প্রদক্ষেপ গ্রহণ করছে ঠিক এই মুহূর্তে বিএনপি আগামীতে ক্ষমতা কি করে পাবে সে জন্য ক্ষমতা দখলের দুঃস্বপ্নে বিভোর হয়ে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে যখন দেশের বিভিন্ন জায়গায় আওয়ামী লীগ ও প্রশাসন দরিদ্রদের খাদ্য পৌঁছে দিচ্ছে, বিএনপি তখনই সংবাদ সম্মেলন করে জনগণের মাঝে উস্কানিমূলক বক্তব্য রাখছেন। তারা দুর্গত অসহায় জনগণের পাশে না থেকে পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে।সেখান থেকে প্রেস ব্রিফিং করে ত্রাণ তৎপরতার নামে কথার ফুলঝুড়ি ঝড়াচ্ছে। বিএনপি জামাত জোট সরকারের লুটপাটের টাকা জনগণের এই দুঃসময়ে জনগণের মধ্যে বিলিয়ে দেওয়ার আহবান জানান তিনি।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল দিনাজপুরে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে এবং দিনাজপুরের মানুষ যাতে খাদ্যের অভাবে কষ্ট না পায় সে জন্য প্রশাসন, দলীয় নেতাকর্মী, জনপ্রতিনিধি, পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলর এবং ইউপি চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করছি আমরা।

 

এই উপহার সামগ্রী বিতরণে সে যেই হউক না কেন কোনো রকম অনিয়ম দুর্নীতি সহ্য করা হবে না। বৃহস্পতিবার (২১ মে) দিনাজপুর একাডেমি স্কুল প্রাঙ্গণে করোনাভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া দিনাজপুর পৌরসভার অন্তর্গত সিডিসি টাউন ফেডারেশনের ৩৫০ জন সদস্যদের মাঝে আম্ফানের ঝড় বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এসব কথা বলেন।

 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান রাজু, দিনাজপুর পৌরসভার কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান নওশাদ, আশরাফুল আলম রমজান, মাকসুদা পারভীন মিনা, সিডিসি টাউন ফেডারশের নেত্রী ঝর্ণা মজুমদার, জাহানারা বেগম ফেন্সি, সুক্লা কুন্ডু, তিথি দে, সুলতানা পারভীন প্রমুখ।