প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :এলাচের রয়েছে হরেকরকমের ভেষজ গুণ। আমরা জানি, খাবারের স্বাদ বাড়ায় এলাচ। কিন্তু এর বাইরেও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় এলাচের রয়েছে অনন্য ভূমিকা। সকালে খালি পেটে এলাচের পানি পানে হজম সমস্যা দূর হয় অনেকটা। শুধু তাই নয়, এলাচে বিদ্যমান ভিটামিন-সি রক্তসঞ্চালন উন্নত এবং ত্বকের সমস্যার সমাধান করে।

আসুন, জেনে নিই, এলাচের নানা স্বাস্থ্য-হিতকর দিকগুলো—

মুখের দুর্গন্ধ দূরীকরণে : 
মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে এলাচ দারুন কার্যকর। এক টুকরা এলাচ খাবারের পর কিছুক্ষণ চিবিয়ে নিন। বিকল্প হিসেবে প্রতিদিন এলাচ-চা পান করুন। এটি পাঁচনতন্ত্র শক্তিশালী করবে। এলাচের অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান মুখের দুর্গন্ধ দূর করে।

রক্তস্বল্পতা দূরীকরণে :

রক্তস্বল্পতা দূর করে এলাচ। প্রতি রাতে এক গ্লাস গরম দুধের সঙ্গে দু’ চিমটি এলাচ ও হলুদ গুঁড়ার মিশ্রণ পান করলে রক্তস্বল্পতা দূর হবে, শরীরে শক্তি বাড়বে, দুর্বলতা কমবে। এলাচে বিদ্যমান রিবোফ্লাবিন, ভিটামিন-সি, নিয়াসিন, আয়রন এবং কপার রক্তস্বল্পতা দূর করতে সাহায্য করে।

বমিভাব দূর করতে :
এলাচ শুধু হজমশক্তি বৃদ্ধি করে না, বমিভাবও দূর করে। একটি ছোট আদার টুকরো, দুটি এলাচ, দু’ বা তিনটি কাঁচা মরিচ ও কয়েকটি ধনিয়া একসঙ্গে গুঁড়া করে গরম পানিতে মিশিয়ে পান করুন। কেন?-হজমশক্তি বৃদ্ধি হবে, গ্যাস ও বমিভাব দূর করবে।

হেঁচকি সমস্যা সমাধানে : 
আপনার কি ঘনঘন হেঁচকির সমস্যা হয়? তবে, এলাচ খাওয়া শুরু করুন। এটি পেশি রিল্যাক্স করে আপনার হেঁচকি কমাবে।

ব্যাকটেরিয়ারোধী :
শরীরের অভ্যন্তরীণ ক্ষতিকর ফাঙ্গাস, ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া দূর করে এলাচ। প্রতিদিনের খাবারে এলাচ যুক্ত করুন অথবা এলাচ চা পান করুন।

হার্ট সুস্থ রাখতে :
হার্ট সুস্থ রাখার পাশাপাশি হার্টবিট নিয়মিত রাখবে এলাচ।

তাই, নিয়মিত এলাচ খান, ডাক্তারের ওপর নির্ভরতা কমান, খরচ বাঁচান, সুস্থ্য থাকুন।

তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই